নিরক্ষর হলেই কি মানুষ অশিক্ষিত বা মূর্খ হয়?

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৯, ২০২০

আমাদের সমাজে নিরক্ষর মানুষকে মূর্খ ও অশিক্ষিত বলার একটা প্রচলন আছে। কিন্তু নিরক্ষর হলেই কি মানুষ অশিক্ষিত বা মূর্খ হয়? অক্ষরজ্ঞান দিয়ে কি শিক্ষা মাপা উচিত? বহু অক্ষরজ্ঞানহীন মানুষ অনেক বিষয়ে অভিজ্ঞ, দক্ষ- যা অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন ব্যক্তিদের মাঝে নাই। শিক্ষাটা কেবল বইয়ের অক্ষরেই সীমাবদ্ধ নয়। যে কোনো কাজে জ্ঞান অর্জন করাই শিক্ষা। যে রিক্সা চালাতে পারে সে সে ব্যাপারে শিক্ষিত। যে লাঙ্গল জোয়াল নিয়ে গরু দিয়ে হাল চাষ করতে পারে সে সে ব্যাপারে শিক্ষিত। আপনি প্রচুর অক্ষরজ্ঞান জেনেও ঐ ব্যাপারে আপনি অশিক্ষিত হতে পারেন। শুধু বইয়ের অক্ষর জেনে সর্বস্থানে শিক্ষিত বলে দাবি করা বা শিক্ষিত বলে মনে করা অন্যায়। 

সাক্ষরতা

আবার মূর্খতা অন্য জিনিস। বহু শিক্ষিত মানুষও অনেক ব্যাপারে গণ্ডমূর্খ থাকতে পারে। কমনসেন্স না থাকা, যে বিষয়ে জানে না সে বিষয়ে কথা বলা, ভুল ধারণার উপর ঘাউড়ামো করা- এগুলো হলো মূর্খতার লক্ষণ। প্রচুর বই পড়েও এ গুণ (আসলে দোষ) আপনার থাকতে পারে। তাই বই পড়তে পারেন বলে সর্বত্র নিজেকে জ্ঞানী দাবি করা ঠিক নয়। 

অশিক্ষা, অক্ষরজ্ঞান, মূর্খতা এসব বিষয় গেল। এবার জিজ্ঞাসা করতে পারে, জ্ঞান কি? জ্ঞান কি সেটা ব্যাখ্যা করার মতো জ্ঞান আমার এখনো হয়নি। জ্ঞান অনেক উপর স্তরের বিষয় এটুকু বুঝি।