মুসলিম হলেই কি শত অন্যায় সত্ত্বেও পরকালে জান্নাত?

প্রকাশিত: জানুয়ারী ৩০, ২০২১

মুসলিম হলে যত পাপই করুক, জাহান্নামের সাজা ভোগ করে একসময় জান্নাতে যাওয়া যাবে। শুধু মাত্র এই ভুল বিশ্বাসের কারণে কোটি কোটি মুসলিম প্রতিনিয়ত দুর্নীতি, ঘুষ, প্রতারণা, খুন, গুম, ধর্ষণ ইত্যাদি যাবতীয় অন্যায়-অপকর্ম করে যাচ্ছে। এই একই কারণে, আমরা যারা মুসলিম দাবি করি, তারা ইসলামের ইবাদত বলতে বুঝি নামাজ-রোজা, হজ্ব-যাকাতকে এবং এই আমলগুলোকে আমরা পরকালীন মুক্তির জন্য ওসিলা হিসেবে মনে-প্রাণে বিশ্বাস করি অথচ পার্থিবজীবনে এগুলোর শিক্ষা কোথায়, প্রয়োগ কোথায় কিছু জানি না এবং জানার চেষ্টাও করি না। 

মুসলিম হলেই কি শত অন্যায় সত্ত্বেও পরকালে মুক্তি পাবো
কিন্তু মহান আল্লাহ আমাদের কল্পনাতীত মহাপ্রজ্ঞাময়, অমুখাপেক্ষী, অন্তর্যামী। তিনি আমাদের মিথ্যা স্তুতি পছন্দ করেন না, বরং রাগান্বিত হোন। তিনি তোষামুদি আর বাস্তবতাকে সবচেয়ে বেশি ভালো জানেন। 

আমরা যারা নামাজ-রোজা পালনকারীর মুখোশের আড়ালে ভন্ডামি করি, এই ভন্ডামি কি আল্লাহ বুঝেন না? 

আল্লাহর অস্তিত্বে বিশ্বাসী একজন শত অন্যায় করলেও মুক্তি পাবেন আর একজন নাস্তিক সেই অন্যায়গুলো না করলেও জাহান্নামের আগুনে জ্বলবে, এতটা নির্দয় আর অবিচারক কি মহান আল্লাহ হতে পারেন? অথচ সকল মানুষ তিনি নিজে সৃষ্টি করেছেন। তাই তিনি তাঁরমত করে সবকিছুর ফায়সালা দিবেন, না আমাদের মস্তিষ্কপ্রসূত চিন্তানুযায়ী, না কথিত ধর্মীয় ঠিকাদারদের কথা অনুযায়ী। 

এই যে এত ধর্মীয় রীতিনীতি, হুকুম-আহকাম, এগুলো মানুষের জন্যই যাতে মানুষ পৃথিবীতে শান্তি, ন্যায়ভাবে জীবনযাপন করে আল্লাহর প্রতিনিধিত্ব করে। পৃথিবীতে, অন্যায়-অশান্তি সৃষ্টি করে সুশৃঙ্খল, ন্যায়, সত্য, শান্তিময় জান্নাতের আশা করি কোন যুক্তিতে?