ফিরতে হবে আসল বাড়িতে

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৬, ২০২১

ফিরতে হবে আসল বাড়িতে
দাজ্জালীয় সভ্যতা প্রতিটি মানুষকে এমনভাবে ব্যস্ত করে রেখেছে যে মানুষ তার আসল বাড়িতে ফেরার কথা মনে করার সুযোগ পাচ্ছে না। কাউকে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ব্যস্ত রেখেছে, কাউকে জীবিকার কাজে ব্যস্ত রেখেছে। সবাইকে মনুষ্যত্ববোধ ভুলিয়ে রোবটে পরিণত করে ছোটাচ্ছে বিরামহীন। কিছু কিছু মানুষ এমনভাবে সম্পৃক্ত হয়েছে প্রযুক্তির সাথে যে তারা ভুলে যেতে বাধ্য হয়েছে তাদের অস্তিত্ব ও তাদের মানবত্ব। 

মানুষের আসল বাড়ি জান্নাত। মানুষ কিছু সময়ের জন্য পরীক্ষা স্বরূপ এই পৃথিবীতে এসেছে। অসত্য প্রত্যাখ্যান করে সত্য ধারণ করে এই পৃথিবীকে জান্নাতে পরিণত করতে হবে মানুষকে, এটাই মানুষের উপর অর্পিত আল্লাহর পক্ষ থেকে দায়িত্ব। যে দায়িত্ব পূরণ করতে পারলে মানুষকে তাঁর আসল বাড়ি ফেরত যেতে আল্লাহ সাহায্য করবেন অর্থাৎ আসল বাড়ি পৌঁছে দিবেন, সাথে অনেক উচ্চতর সম্মানে ভূষিত করবেন। 

প্রযুক্তিগত অনেক উন্নতি অর্জন করেছে মানুষ এটা সত্যি গর্বের বিষয়। কিন্তু এই প্রযুক্তিগত উন্নতি মানুষের জীবন থেকে অশান্তি দূর করে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে সফল হয়নি। সমাজ থেকে অন্যায়-অবিচার, চুরি-ডাকাতি, অভাব, বৈষম্য, দ্বন্দ্ব-সংঘাত দূর করে সম্প্রীতির বন্ধনে সবাইকে বাঁধতে পারেনি। কারণ এই সভ্যতা পার্থিব জীবনে ক্ষণস্থায়ী সফলতায় পতিত করে মানুষকে দাম্ভিক ও অহংকারী করে তুলেছে। ফলে সফলতা সুফল হওয়ার পরিবর্তে বিষবৃক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

মানুষ যদি আত্মিক তুষ্টি পেতে চায়, সামাজিকভাবে শান্তিতে থাকতে চায় তাহলে মানুষকে অবশ্যই এই বিস্ময়কর সৃষ্টির মহান সৃষ্টিকর্তার প্রেরিত জীবনব্যবস্থা মেনে নিতে হবে। এখানে হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, মুসলমান বলতে কথা নেই, সবাইকে এক সৃষ্টিকর্তার অর্থাৎ আল্লাহর বিধান মেনে নিতে হবে। কারণ মানুষের রচিত বিধান এতটা নির্ভুল ও নিখুঁত না যে তা মেনে চললে যাবতীয় অন্যায় অবিচার নির্মুল হয়ে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে। 

মানুষ ভুলের ঊর্ধ্বে যেতে পারে না, তাই মানুষের রচিত জীবন-বিধান মানে তার মধ্যে ভুলত্রুটি থাকবে। কারণ যে বিধান প্রণয়ন করে সে তার স্বার্থ বিবেচনা করে তা রচনা করে বা করছে। এইজন্য মানুষের রচিত বিধান সব মানুষের জীবনের সমাধান দিতে সক্ষম না। কিন্তু আল্লাহ সমস্ত স্বার্থের ঊর্ধ্বে ওঠে পুরো মানবজাতিকে সমান ন্যায়বিচার প্রদান করেছেন তাঁর পবিত্র বিধানের মাধ্যমে।